বৃহস্পতিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি


জীবন-সুফিলের দুই গোলে নেপালকে হারালো বাংলাদেশ।

 

নাজমুল ইসলাম,স্টাফ রিপোর্টারঃ

করোনার দীর্ঘ বিরতির পর আবার আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফেরার ম্যাচে নেপালকে দুই-শূন্য গোলে হাড়িয়েছে সাগতিক বাংলাদেশ। খেলার প্রাথমার্ধে নাবীব নাওয়াজ জীবন এবং দ্বিতীয়ার্ধে মাহবুবুর রহমান শফিল গোল দেন।

ম্যাচের শুরু থেকে আধিপত্য ধরে রাখে জ্যামিডের শিশুরা। এই জয়ে দলকে ১০ লক্ষ টাকার পুরষ্কার দেওয়ার ঘোষণা যানিয়েছে বাফুফে। মাঠে ৮ হাজার দর্শকের অনুমিতি থাকলেও দেখে বুঝা যায় ফুটবলের টানে মাঠে সেই সংখ্যা ছিলো অনেক বেশি। জানুয়ারিতে ম্যাচের পর দশ মাসের বিরতি। এমন দৃশ্যই স্বাভাবিক।

নেপালের বিপক্ষে কোচ জেমিডে পাচ,দুই,তিনের নতুন ফরমিশন করলেন নতুন শুরু। পরখ করে নিতে মাঠে নামান গোলরক্ষক জিকোকে। তার সাথে জাতীয় দলে প্রথমবার ডাক পেয়েই অভিষেক হয়েছে সুমনেরও। ম্যাচের ১০ মিনিটেই জীবনের কারণে সতেজ হয়ে উঠে গোটা গ্যালারি।

সাদউদ্দিনের ক্রসে তার ফিনিশিং এগিয়ে নেয় সাগতিকদের। ম্যাচে ফিরতে নেপাল চাপ বাড়ায়। আদায় করে নেয় এক সাথে একাধিক কর্ণারও।কিন্তু বেঙ্গল টাইগারদের রক্ষণ ভাঙতে ব্যর্থ হয় সফরতরা। একুশ মিনিটেই ব্যবধার দুই-শূন্য করতে পারতো জেমিডের শিষ্যরা।

জোবনের ক্রস থেকে ইব্রাহিমের হেড শেষ পর্যায়ে নেপালের রক্ষণে প্রতিহত হয়। মিনিট দুই পর আবারো সিযোগ পায় জামালরা। এবার বিশ্বকাপের শুরু থেকে তপু বর্মণের হেড লক্ষভ্রষ্ট। ২৭ মিনিটে মানিক মোল্লার দৌড়পাল্লার শর্ট নেপালের গোলরক্ষক কিরণ হাত ছুইয়ে প্রতিহত করেন। তবের ম্যাচের সব থেকে সহজ সুযোগ নষ্ট করেছেন জীবন।

৩০ মিনিটে সাদের ক্রস থেকে দাঁড়িয়েও শর্ট মারেন উপরের দিকে। দ্বিতীয়ার্ধে কিছুটা ঝিমিয়ে পড়ে জামাল-জীবন। জামাল-জীবনসহ ম্যাচের পাশ ফেরানোর চেষ্টা করেন জেমিডে। ৭৬ মিনিটে অপুর ফ্রী-কিক ছাড়া তেমন আক্রমণ করতে পারে নি বাংলাদেশ। তবে ৮০ মিনিটে থ্রু বল থেকে সুফিলের ক্ষিপ্রতার কাছে আবারো হাড় নেপালের ডিফেন্সের।

34 Views

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*