বৃহস্পতিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি


নাগরপুরে মাংসে রং মিশিয়ে বিক্রি

 

সোলায়মান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:

টাঙ্গাইলের নাগরপুরের সহবতপুর ইউনিয়নের খোরশেদ মার্কেট হাটে, মাংসে রং মিশেয়ে বিক্রি করার অপরাধে, লাল চাঁন নামের এক ব্যক্তিকে ১০ দিনের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

২০ নভেম্বর শুক্রবার দুপুরে উপজেলার সহবতপুর ইউনিয়নের খোরশেদ মার্কেট হাটে প্রকাশ্যে লাল চাঁন নামের ওই ব্যক্তি মাংসে বিষাক্ত রং মিশিয়ে বিক্রি করার সময় জনতা বিষয়টি টের পেয়ে, নাগরপুরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ওসি তদন্ত মো. বাহালুল খান বাহারকে বিষয়টি অবগত করলে, প্রশাসন দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনার সত্যতা পান।পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযুক্ত লাল চাঁন মিয়াকে ১০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, সে অনেক দিনযাবৎ মাংস ব্যবসার সাথে জড়িত। পরিবারবের কাছ থেকে জানা যায়,সে টাঙ্গাইলের পার্কের বাজারের খোকন মিয়ার মাংসের দোকানে কাজ করে। পার্কের বাজারের মাংস বিক্রেতা খোকনের কাছ থেকে পাইকারি দরে ঐ গরুর মাংস কিনে নাগরপুরে বিক্রির উদ্দেশ্য এনেছিলো। প্রতি কেজি ১২০ টাকা দরে মেশানো গরুর মাংস (ছাট মাংস) বিক্রি করছিলো সে।
এ ছাড়াও মাংসে রং মেশানোর বিষয়টি সে অস্বীকার করে বলে জানা গেছে।
তবে ভ্রাম্যমাণ আদালতের রায়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সিফাত-ই-জাহান, পুলিশ অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান জনতা।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নাগরপুর থানার এসআই মো. শাহ আলম, মো. সাইদুর রহমান, উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের উপ সহকারী মো. লিয়াকত হোসেন, নাগরপুর সিএনজি শ্রমিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. ঠান্ডু মিয়া, সাংবাদিকবৃন্দ ও হাটে আগত জনসাধারণ।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিফাত-ই-জাহান বলেন, মাংসে রং মেশানোর দায়ে ভোক্তা অধিকার আইনের ২০০৯ এর ৪২ ধারায় মো. লাল চাঁন মিয়াকে ১০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এ সময় তিনি উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্য বলেন, ভোক্তাদের অধিকারের সুরক্ষায় আমাদের এ ধরনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের ভেজাল বিরোধী অভিযান অব্যহত থাকবে।

4 Views

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*