1. admin@ajkerunmocon.com : ajkerunmocon.com :
রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৪:৩৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
ঠাকুরগাঁওয়ে জমি দখলকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন। অস্ত্রোপচার হতে চলেছে বলিউডের অভিনেতা অমিতাভ বচ্চনর। কুষ্টিয়ার হাউজিংয়ে ভূমিদস্যু কর্তৃক নির্মানাধীন বাড়ি ভাংচুর করে জমি দখলের চেষ্টা। ভেড়ামারা জুনিয়াদহ মামুন মুন্সির প্রতারণার ফাঁদে সর্বশান্ত হয়ে দিশেহারা ভুক্তভোগী পরিবারটি। প্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদলের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ। নিরলস কাজ করছেন এমপি ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ। শিলাইদহের কুঠিবাড়ি ও বাঘা যতিনের ভিটা পরিদর্শন করলেন ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি নিয়ে বর্তমান সময়ের অবস্থা! আসন্ন ইউপি নিবার্চনে ৫নং সলিয়াবাকপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী মো:আনিছুর রহমান মিলন। ঝিনাইদহে ১৮ মাসের কাজ ৫ বছর তবু হস্তান্তর হয়নি আড়াই’শ বেড হাসপাতাল ভবন।

রায়পুরার পলাশতলিতে সমলয়ে চাষাবাদে ব্লক প্রদর্শনীর কার্যক্রম শুরু

হারুনুর রশিদ উন্মোচন ডেক্সঃ
  • প্রকাশিত: রবিবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৪৪ বার পড়া হয়েছে

 

নরসিংদীতে কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় সমলয়ে চাষাবাদে ব্লক প্রদর্শনীর ধানের চারা রোপন কার্যক্রমের উদ্বোধন করা করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলার রায়পুরা উপজেলার পলাশতলী ইউনিয়নের খাকচক কৃষি মাঠে উদ্বোধন ও আলোচনা সভা আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।
উপজেলার পলাশতলী ইউনিয়নে রাইস প্লান্টারের মাধ্যমে একসাথে ৫০ একর জমিতে বোরো ধানের চারা লাগানোর কার্যক্রম উদ্বোধন করেন নরসিংদী জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সাদেক, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শোভন কুমার ধর, জেলা প্রশিক্ষণ অফিসার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কৃষিবিদ ড মো,মাহবুবুর রহমান, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ মাহমুদুর রহমান খন্দকার, উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ বনি আমিন খান, পলাশতলী ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ভুইয়া প্রমূখ। প্রধান অতিথি সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন বক্তব্যে বলেন, কৃষি বান্ধব সরকারের পরিকল্পনায় বাংলাদেশ কৃষিক্ষেত্রে এক বিপ্লবের সূচনা করেছে। কৃষিতে বিভিন্ন উদ্ভাবন আর অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সমন্বয়ে কৃষিতে আমরা বিশ্বের রোল মডেল। তিনি সমলয়ে চাষাবাদকে স্বল্প জমিতে কম খরচে বেশী উৎপাদনে সক্ষম আধুনিক পদ্ধতি। উল্লেখ্য এ বছর জেলায় রায়পুরাতেই চালো করতে পেরেছি। সমলয়ে চাষাবাদ ব্লক প্রদর্শনীতে এগিয়ে আসার জন্য। সকল উপজেলায় চাহিদা পাঠানো হয়েছিল। বিশেষ করে রায়পুরা উপজেলা এই চ্যালেন্জটা নেয়ার জন্য ধন্যবাদ দিচ্ছি। আগামীতে সকল উপজেলায় এ কার্যক্রম সম্প্রসারণ করা হবে। একমাত্র অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে সমলয়ে চাষাবাদ সহ বিভিন্ন উৎপাদনমূখী কৌশল ব্যবহার করে কৃষিশিল্পে পরিণত করতে কৃষকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানাচ্ছি। কৃষিক্ষেত্রে যান্ত্রিকীকরণের মাধ্যমে উৎপাদন খরচ কমানো, শ্রমিক সংকট নিরসন করা সম্ভব। যার ফলে সময় কমিয়ে এক সাথে লাগানো ও কর্তন করা যায়। সমলয়ের মাধ্যমে একে অপরের সাথে সৌহার্দ পূর্ণ আচরণ ভ্রাতৃপ্রেমী হয়ে কৃষিকে শিল্পে পরিনত করবে।
শোভন কুমার ধর বলেন,এক পরিসংখ্যানে দেখা যায় যন্ত্রের মাধ্যমে চাষাবাদে কৃষকদের তিন থেকে সাড়ে চার হাজার টাকার মতো খরচ কমবে। এতে কৃষকরা লাভবান হবে। সমলয় কর্মসূচি কৃষকদের মাঝে সমবায় মনোভাব গড়ে তোলা যাতে করে কৃষিকে শিল্পী রূপান্তর করা যায়। স্বল্প সময়ে কম খরচে বোরো ফসল রোপণ ও কর্তন করা যাবে। সমল চাষাবাদের ফলে রোগ বালাই এবং পোকার আক্রমণ কম হবে। আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতির ও প্রযুক্তির ব্যবহার করে কৃষি সম্প্রসারণ করে সম্ভব। এই প্রকল্পের জন্য সকল উপজেলায় চাহিদা চাওয়া হয়েছিলো।পরবর্তীতে সকল উপজেলায় সম্প্রসারণ করা হবে। এরি মধ্যে রায়পুরায় কৃষকদের মাঝে বাপক আগ্রহ দেখাচ্ছে। খাকচর গ্রামের ৫০ একর জমিতে ৮৫ জন কৃষকদের মাঝে ব্লক প্রদর্শনী কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এই কর্মসূচি সার্থক করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা সহযোগিতা করে যাচ্ছি জেলা ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাগন। কৃষক আবুল কালাম বলেন,দীর্ঘদিন যাবৎ আমরা বাপ-দাদার পুরনো নিয়মে চাষাবাদ করে আসছিলাম আধুনিক যন্ত্রপাতি দেখে আমরা কৃষি কাজে উৎসাহ প্রেরনা পেয়ে আনন্দিত। আশা করি লাভের মুখ দেখতে পারবো। কৃষাণী সালমা আক্তার বলেন,যন্ত্রের মাপা যন্ত্রের মাধ্যমে ধানের চারা লাগানো আগে কখনো দেখিনি এমন একটি কর্মসূচিতে সম্পৃক্ত হতে পেরে খুব খুশি। পরবর্তীতে কাজে লাগাতে পারবো। মফিজ উদ্দিন বলেন, অফিসাররা যা বুঝিয়েছেন তা সফল ভাবে বাস্তবায়ন করা গেলে সফলতা পাবো। এই আধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যাবহার করে সময় খরচ বাচিয়ে ধান চাষে লাভবান হতে পারবো।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বনি আমিন খান বলেন, উপজেলায় খাকচর গ্রামে ৮৫ জন চাষিদের সমলয়ে চাষাবাদ ব্লক প্রদর্শনীতে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে এই কার্যক্রম পরিচালনায় নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পেরে আনন্দিত । এই চাষাবাদ প্রকল্পে লাল রং এর টিয়া জাতীয় হাইব্রিড ধান পরীক্ষামূলক ভাবে রোপণ করা হয়েছে। সমলয়ের আওতায় কৃষকরা সরকারি ভাবে রোপন,কর্তন,সার,বালাইনাশক সহ সর্বাত্মক পরামর্শ সহযোগিতা দিয়ে যাবো। রাইস প্লান্টারের মাধ্যমে ধান লাগালে কৃষকদের একর প্রতি ১০- ১১ হাজার টাকা অতিরিক্ত ব্যায় সাশ্রয়ী হবে। বোরো ফসল উৎপাদনে কৃষি যন্ত্রপাতির ব্যবহার বৃদ্ধি পাবে। সহজলভ্য চাষাবাদে কৃষকদের আরও বেশি অনুপ্রানিত করে তুলবে। ধান চাষে আগ্রহী হবে। সমলয়ে চাষাবাদ ব্লক প্রদর্শনীর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে দেশ হবে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ।
”(সম্পাদকের বার্তা: এই প্রতিবেদনটি করেছেন রিপোর্টার হারুনুর রশিদ ।এই অঞ্চলের অন্যায়,অনিয়ম অথবা সামাজিক কাজের তথ্য দিতে এই নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন(০১৯১২৫২৭০৫১/০১৭১৭৭৩৭২৬৬)”

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট